30 C
Dhaka
বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, | সময় ৯:৪৯ অপরাহ্ণ

রাণীশংকৈলে বোরো ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি চাষ


বিজয় রায় , রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি ঃ

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় এ বছর আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। এ মৌসুমে শিলাবৃষ্টি ও ব্লাস্ট রোগ আক্রমণ যদি শেষ পর্যন্ত না হয়ে থাকে তবে বাম্পার ফলনের আশা করেছে ধান চাষিরা। এবং বাম্পার ফলনের আশায় হাসি ফুঠেছে প্রান্তিক কৃষকের মুখে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, রানীশংকৈল উপজেলায় এবার বোরো ধানের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭ হাজার ৯শত ৫০ হেক্টর কিন্তু লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে এবার বোরো ধানের আবাদ হয়েছে ৮ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে। ফসল কাটার আগে কালবৈশাখী ঝড় আর শিলাবৃষ্টি না হলেই এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন বাড়িতে তোলার অপেক্ষায় প্রান্তিক চাষিরা।

এদিকে (৩ মে) উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায়, জমিতে ব্লাস্টের ওষুধ দিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের নির্দেশনায় এবার দেখা যায় রাণীশংকৈলে আগাম ব্লাস্ট রোগ সম্পর্কে মাইকিং ও আগাম সচেতনতা মূলক মাইকিং করে প্রচার প্রচারণা চালিয়েছে উপজেলা কৃষি অফিস ও রাণীশংকৈল এর উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা গণ কৃষকদের হাতে হাতে পৌঁছে দিয়েছে ওষুধের নাম চিরকুটে করে।তাই কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এর আগাম পচারনায় সাধু বাদ জানিয়েছে অনেক কৃষক।এতে অনেক কৃষক জানিয়েছেন আগাম বার্তা পেয়ে তারা আগাম ভাবে ধানক্ষেতে উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শ মেনে ব্লাস্টে রোগের স্পে করেছি সেজন্য এখনো পর্যন্ত আমরা সেরকম ব্লাস্টের কোন রোগ ধানক্ষেতে দেখতে পাইনি। আল্লাহ সহায় থাকলে এবার ভাল ফলনের আশা করছে প্রান্তিক কৃষকরা।

কৃষি অফিস সূত্রে আরো জানা যায় এ বছর রাণীশংকৈল উপজেলায় ৮ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌর সভার মধ্যে নন্দুয়ার, নেকমরদ ও রাতোর ইউনিয়নে বোরো ধানের বেশী চাষাবাদ হয়েছে। বাকিগুলোতে বেশিরভাগ ভুট্টা চাষ হয়েছে। কৃষি অফিস সূত্রে আরো জানা যায় এ বছর ব্রি ধান ৮৯, ৮৪, ৮১, ৭৪, ৫৮ ও ২৯ সাথে হাইব্রিড ধানের চাষাবাদ বেশি হয়েছে রাণীশংকৈলে।

এবিষয়ে কৃষি বিদ ও উপজেলা কৃষি অফিসার সঞ্জয় দেবনাথ বলেন এবার লক্ষমাত্রার চেয়ে এ উপজেলায় বেশি বোরো ধানের চাষ হয়েছে।তাই আবহাওয়ার শেষ পর্যন্ত অবনতি না হলে বিঘা প্রতি বোরো ধানের ফলনের সম্ভাবনা ধরা হয়েছে ৩০ থেকে ৩৫ মন পযন্ত।ধরা হচ্ছে এবার ৮ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে ৫৮ হাজার ৫ শত ৬৪ মেট্রিকটন ধান পাওয়া যেতে পারে আবহাওয়া যদি অনুকুলে থাকে।

আরও পড়ুন...

সরিষার ফলন ও দামে খুশি নিয়ামতপুরের কৃষকরা।

Al Mamun Sun

ঈশ্বরগঞ্জে আগাম লাউয়ের বাম্পার ফলনে কৃষক খুশি।

Al Mamun Sun

ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈলে লেয়ার মুরগি পালনে মামুনের সফলতার গল্প!

Al Mamun Sun
bn Bengali
X