28 C
Dhaka
শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪, | সময় ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ

দার্জিলিং জাতের কমলা চাষ করে ব্যাপক লাভবান জুয়েল, বাগান দেখতে দর্শনার্থীদের ভিড়

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁওয়ে দার্জিলিং জাতের কমলা বাগান করে লাভবান হয়েছেন কৃষক আবু জাহিদ ইবনুল ইরাম জুয়েল। বাগানের প্রতিটি গাছে ফল ধরেছে প্রচুর। ভারতীয় জাতের এ ফল মিষ্টি ও সুস্বাদু হওয়ায় বাজারে চাহিদাও রয়েছে। এছাড়াও বাগানটি দেখার জন্য প্রতিদিন হাজারো দর্শনার্থী ভিড় করছেন। বাগানেই বিক্রি হচ্ছে দার্জিলিং জাতের কমলা।

ঠাকুরগাঁও পীরগঞ্জ উপজেলার কোষারাণীগঞ্জ ইউনিয়নের মালঞ্চা গ্রামের জুয়েল নামে এক কৃষক দশ বছর আগে হর্টিকালচার থেকে হাতে গোনা কয়েকটি চারা ক্রয় করে জমিতে রোপন করে। দু বছরের মাথায় আশানুরুপ ফল হওয়ায় বাগানের পরিধি বাড়ায়। এখন বাগানে প্রায় ৩শত টি কমলা গাছ রয়েছে।

উৎপাদিত বাগানের এসব ফল স্থানীয় বাজারের চাহিদা পুরন করে পাঠানো হচ্ছে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায়। প্রতি বছর বাগানের পরিধি বাড়ায় কর্মসংস্থানের সৃস্টি হয়েছে অনেকের। বাগানের প্রতিটি গাছে থোকায় থোকায় ঝুলছে ভারতীয় দার্জিলিং জাতের কমলা। নভেম্বর মাস থেকে বাগানের উৎপাদিত কমলা বিক্রি করতে শুরু করেছে বাগান মালিক।

বর্তমানে তিনশতাধিক গাছের এই বাগানের প্রতিটিতে আট থেকে নয়শ কমলা ধরেছে। চলছে ফল বিক্রি কার্যক্রম। উৎপাদিত কমলা ক্রয়ে বাগানেই ছুটে আসছেন দুর দুরান্তের ব্যবসায়ীরা। সেখান থেকেই প্রতি কেজি কমলা বিক্রি করছেন ১৫০-২০০ টাকা দরে। একই প্লটে উৎপাদন করছেন চারা। সীমান্ত এলাকায় ফল বাগান গড়ে উঠায় কর্মসংস্থানের পাশাপাশি এলাকার অন্যান্য কৃষকেরাও উদ্ভুদ্ধ হয়ে নিচ্ছেন পরামর্শ।

দার্জিলিং জাতের কমলার বাগানের মালিক আবু জাহিদ ইবনুল ইরাম জুয়েল বলেন, এই বাগান থেকেই এবার দশ হাজার মেট্রিকটন কমলা উৎপাদন হবে আশা করছি। আমার বাগানের বয়স প্রায় ১০ বছর। তিন বছর পর থেকেই ফল আসা শুরু হয়েছে। এর আগে আমি ফল পাইকারি বিক্রি করে দিতাম। এবার সোস্যাল মিডিয়ার কারণে বাগানটি ভাইরাল হয়েছে। সেজন্য প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ এই বাগান দেখতে আসে। তবে কৃষকরা যদি এভাবে কমলার বাগান করতে এগিয়ে আসে তাহলে কৃষিতে একটা বিপ্লব ঘটবে।

আর কমলা দেশের বাহির থেকে আনতে হবে না। আমাদের দেশের কমলা দিয়েই চাহিদা পূরণ হবে বলে আমি মনে করছি। এছাড়াও আমার কাছে কেউ বাগান সম্পর্কে জানতে আসলে বাগান করতে কৃষকদের উৎসাহ করচ্ছি।

উল্লেখ্য, কৃষি বিভাগের তথ্য মতে জেলায় ৭৩ হেক্টর জমিতে মালটা ও কমলার বাগান রয়েছে এক হাজার ৩২টি। এর মধ্যে সীমান্তবর্তী উপজেলার পীরগঞ্জ ও হরিপুরে ভারতীয় দার্জিলিং জাতের সাতটি কমলা বাগান গড়ে উঠেছে।

আরও পড়ুন...

ঠাকুরগাঁও-এ দুই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা-১স্বতন্ত্র-১

Al Mamun Sun

টাঙ্গাইলে দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে

Al Mamun Sun

ঠাকুরগাঁও-এ মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা

Al Mamun Sun
bn Bengali
X