29 C
Dhaka
শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, | সময় ১২:২১ পূর্বাহ্ণ

মোংলায় সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত গৃহবধু রুপা বেগমের অবস্থা সংকটাপন্ন: চিকিৎসাধীন রয়েছে খুলনা মেডিকেল কলেজে

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে মোংলায় একগৃহ বধুর উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে। সন্ত্রসীদের দায়ের কোপে মাথায় আঘাত পেয়ে গুরুতর আহত হয়ে তিনি চিকিৎসাধিন রয়েছেন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। ওই হামলায় গুরুতর আহত গৃহবধু রুপা বেগমের শারিরিক অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছেন তার স্বজনরা। হামলার ঘটনায় ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আহতের পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আহতের পরিবার সুত্রে জানাযায়,মোংলা উপজেলার মোর্শেদ সড়ক এলাকায় একটি জমির বায়না করেন রুপা বেগমের শাশুড়ি নুর নাহার বেগম। বায়নাকৃত সম্পত্তি এক এর এক খতিয়ান ভুক্ত হওয়ায় নিদিষ্ট সময়ে বায়না দাতা বায়নাকৃত ভুমি রেজিষ্ট্রি করে দিতে পারেননি। তবে ভোগদখল দিয়েদেন বায়না গ্রহিতাকে। দির্ঘদিন অতিবাহিত হওয়ার পরও বায়নাদাতা ভুমি রেজিষ্ট্রি করে না দেয়ায় আদালতে মামলা করেন নুর নাহার বেগম। ওই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে একটি ভুমিদস্যু চক্র নুর নাহার বেগম কে নানা ভাবে হয়রানী করতে থাকেন।

আহত রুপা বেগমের শাশুড়ী জানান,গেল ২৯ জুলাই বাড়ীতে কেউ না থাকার সুযোগে বিরোদপূর্ণ জায়গাটি মোঃ মহিদুল ইসলাম,মনি বেগম,মোঃ রনি,মোঃ জনি,ফাতেমা বেগম,ইয়াসিন আকন,রুস্তম হাওলাদার,জোহরা বেগম,মোঃ স্বপন,আরো অঞ্জাত ২/৩ জন মিলে দুপুরে দখল নেয়ার চেষ্টা করে। ওই সময় তাদের বাধা দিতে গেলে নুর নাহারের পুত্রবধু রুপা বেগমের উপর হামলা করে তারা। তাদের দায়ের কোপে মাথায় গুরুতর আঘাত পান রুপা বেগম। সাথে সাথে গুরুতর আহত রুপা বেগমকে মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স্র ভর্তি করানো হয়। তার শারিরিক অবস্থা খারাপের দিকে গেলে মোংলা স্থাস্থ্য কমপ্লেক্সএর চিকিৎসকরা রুপা বেগম কে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজে রেফার করেন। বর্তমানে রুপা বেগম খুলনা মেডিকেলে চিকিৎসাধিন আছে। তার শাশুড়ী নুর নাহার জানিয়েছেন, সাতটি শেলাই দেয়া হয়েছে পুত্র বধুর মাথায়। অনেক রক্তখরনের কারনে তার শারিরিক অবস্থা খুব খারাপ। খাওয়া দাওয়া বন্ধ রয়েছে কয়েকদিন যাবৎ। শুধু মাত্র স্যালাইন দিয়ে রাখা হয়েছে তাকে।

এদিকে স্ত্রীকে দায়ের কোপে গুরুতর আহতের ঘটনার দায়ে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আর অঞ্জাত আরো ২/৩ জনের বিরুদ্ধে মোংলা থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে রুপা বেগমের স্বামী মোঃ রাজু। তবে এঘটনায় এখনো কোন আসামী আটক হয়নি। মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, মারামারির ঘটনা নিয়ে তদন্ত করছেন তারা। বাদী পক্ষ আর আহত গৃহবধু খুলনায় অবস্থান করায় প্রয়োজনীয় তথ্য না পাওয়ায় তারা এখনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি।

অন্য দিকে গৃহবধুর উপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত মহিদুল জানান,তিনি বিরোধপূর্ণ জায়গার সমাধান চেয়ে একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন সহকারী পুলিশ সুপার (মোংলা সার্কেল) বরাবর। এমন দোহায় দিয়ে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হননি।

তবে মোংলা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আসিফ ইকবাল জানান, একটি লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য উভয় পক্ষকে ডেকে পাঠিয়েছেন। শুনানি চলমান থাকা অবস্থায় দুপক্ষের মধ্যে মারামারি অভিযোগ পাওয়া যায়। আহত রুপা বেগম শুস্থ হলে প্রয়োজনীয় তথ্য নিয়ে আইনানুক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন...

নওগাঁর জেলার  নিয়ামতপুরে প্রাইভেট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত  ।। 

Staff correspondent

নড়াইলে সরকারি জমি দখল করে যুবলীগ নেতা ও প্রধান শিক্ষকের বহুতল বিপণিবিতান !!

Staff correspondent

কলাপাড়ায় এনএসআই’র (এক্স) পরিচালকের বাসায় সন্ত্রাসী হামলা, পুলিশি পাহারা ॥

Staff correspondent
bn Bengali
X