29 C
Dhaka
বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, | সময় ৬:১৭ অপরাহ্ণ

আমরন অনশনের ডাক, গাংনী পৌরসভার মেয়র বিরুদ্ধে। দাবি ১৫ লক্ষ টাকা দাও,না হয় লাশ নাও।

সজিব আহমেদ:

মেহেরপুরের গাংনী পৌরসভার মেয়র আশরাফুল ইসলামের বিরুদ্ধে এবার পৌরসভায় আদায়কারি পদে নিয়োগ দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ করেছেন। আবারও দ্বিতীয় দিনে আমরন অনশনে বসেছে ঐ দুই মহিলা পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড শিশিরপাড়া মাঠ পাড়া এলাকার বাসিন্দা ও বাহাদুর আলির মেয়ে মৌমিতা খাতুন বাহাদুরে স্ত্রী হুসনিয়ারা খাতুন।
ভুক্তোভোগি মৌমিতা খাতুন টাকা আদায়ের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার (২০আগষ্ট) দুপুরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে শহীদ মিনারে অনশনে বসেন এবং মেয়র আশরাফুল ইসলামের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগের কথা জানায়। গতদিন গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান মীমাংসা করে দেবেন। তাই তাহারা গত দিন ওসি কথা অনশন থেকে উঠেন। ভুক্তোভোগি মৌমিতা আরও জানান, থানায় মীমাংসা জন্য বসেও কোন সুরহারা হয় নাই মৌমিতা স্বামী আশা অপেক্ষকা থাকে,এবং পড়ে ভুক্তভোগী মৌমিতা স্বামী আসে এবং থানা ওসি সাথে দেখা করেন কিন্তু আর আশরাফুল ইসলাম (মেয়র) থানাতে আসেনি।ভুক্তোভোগি মৌমিতা অনশন ভাঙ্গা প্রসঙ্গে বলেন, ‘টাকা ফেরত না দিলে এই শহীদ মিনারে জীবন দেওয়া ছাড়া কোন উপায় থাকবেনা। আপনারা আমার টাকা ফেরৎ না পাওয়া পর্যন্ত অনশনে থাকবে
তাই আবার বাধ্য হয়ে কঠোর আমরন অনশনে যাই ভুক্তভোগী দুই মহিলা।পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম কাছে১৫ লক্ষ পাওনা টাকার টাকা দাবিতে

সে সময় আমাদের জামি-জমা বন্ধক রেখে তাকে টাকা দিতে থাকেন বলে জানান ভুক্তোভোগি মৌমিতা খাতুন। ২০১৭ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মেয়র ও মেয়রের স্ত্রী শাহানা ইসলাম শান্তনাকে বিভিন্ন সময় মোট ১৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

উল্লাহ তারা জানান, চাকুরির দাবিতে মেয়রের কাছে গেলে সে আমাকে মাষ্টার রোলে কাজ করতে বলে এবং পরে চাকুরি স্থায়ী করা হবে বলে আশ্বাস দেয়। মাষ্টার রোলে চাকুরি করার তিন বছর চলাকালে মেয়রকে স্থায়ীকরণের কথা বলতে গেলে তিনি অপেক্ষায় থাকতে বলেন বলে।অন্য জনকে ঐ পদে আরেক জনকে নিয়োগ দিলে ভুক্তোভোগি মৌমিতা তার টাকা ফেরৎ চাইতে থাকে।

মৌমিতা বর্তমানে ৫-৬ মাসের অন্তঃসত্তা উল্লেখ করে সাংবাদিকদের জানান, এই অবস্থায় মেয়রের কাছে টাকার কথা বলতে গেলে মেয়র আশরাফুল ইসলাম অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ বিভিন্ন রকম হুম দিতে থাকে। বাড়ি থেকে বের করে দেয় এবং বলে ‘আমার নামে মামলা করলে টাকা ১০ থেকে ২০ টাকা করে পাবি।’
যখনই টাকার কথা বলা হয় তখনই মেয়র আশরাফুল ইসলাম এভাবে অপদস্ত করে বলে জানান ভুক্তোভোগি মৌমিতা খাতুন।

আরও পড়ুন...

চাঁদপুর মতলবে ধনাগোদা নদীতে কচুরীপানা খেয়া নৌকা পারাপারে ভোগান্তি।

Staff correspondent

ফুলবাড়ীতে ২৯ বিজিবি’র সদর দপ্তরে ৫কোটি টাকার মাদক ধ্বংস

Staff correspondent

মুরাদনগরে অব্যবস্থপনায় ঐতিহ্যবাহী কোম্পানীগঞ্জ বাজারের বেহাল দশা

Staff correspondent
bn Bengali
X