28 C
Dhaka
সোমবার, ১৯ অক্টোবর ২০২০, | সময় ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

চুয়াডাঙ্গায় রাস্তার বেহাল দশা,জন দুর্ভোগ চরমে।


সজিবুর রহমানঃ

চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর থানার বালিহুদা গ্রামে রাস্তা এখনো অনুন্নত।হালকা পানি হলে রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে যায়।এতে চাষাবাদ,যাতায়াত ক্ষেত্রে জনগণ ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে।
রাস্তাটি চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর থানার বালিহুদা গ্রাম থেকে ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর থানার খালিশপুর বাজারে গেছে।দীর্ঘ ৬-৭ কিঃমিঃ রাস্তাটি হালকা পানি হলে কাঁদা হয়ে যায়।বর্ষাকালে এ রাস্তা চলাচলে একেবারে অনুপযোগী হয়ে পরে।কোনো গাড়ি চললে গাড়ির চাকা এক হাত কাঁদার নিচে পুঁতে যায়।
বালিহুদা-খালিশপুর সড়কটি দুইটি জেলার ভিতরে পড়েছে।সম্প্রতি ঝিনাইদহ জেলার অংশটুকু পাকা হয়েছে।কিন্তু দীর্ঘ অপেক্ষার পরও চুয়াডাঙ্গা জেলার অংশটুকু এখনো পাকা হয়নি।এতে এ অঞ্চলের চাষাবাদের সমস্যা হচ্ছে।কৃষক তার পণ্য পরিবহনে ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে।
সড়কটির পাশ ঘেঁষে শত শত একর জমি রয়েছে।পাকা রাস্তা হলে এসব জমির ফসল খেত থেকে তুলে তারা সরাসরি এই রাস্তা দিয়ে খালিশপুর বাজারে পরিবহন করতে পারতো।কিন্তু রাস্তা পাকা না হওয়ায় তাদের বিকল্প রাস্তা দিয়ে পণ্য পরিবহন করতে হচ্ছে।এতে পরিবহন খরচ অনেক পরে যাচ্ছে।ফলে,কৃষক চাষাবাদে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে।
এছাড়াও,এ রাস্তা দিয়ে বালিহুদা,বাড়ান্দী,রায়পুর,কৃষ্ণপুর,মারুফদাহ,চাকলা,মাধবপুর সহ কয়েকটি গ্রামের শিক্ষার্থীরা সরকারি বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ হামিদুর রহমান ডিগ্রি কলেজ ও শহীদ জিয়াউর রহমান ডিগ্রি কলেজ যাতায়াত করে।কিন্তু বর্ষাকালে রাস্তা কাঁচা হওয়ায় শিক্ষার্থীরা কলেজ যাতায়াতে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে।বেছে নিতে হয় বিকল্প পথ।
শিল্পের প্রধান উপাদান যেমন কাঁচামাল,তেমনি পণ্য পরিবহনের প্রধান উপাদান উন্নত সড়ক।ফসল পরিবহন ও যাতায়াতের ক্ষেত্রে ও ঠিক তেমনি দরকার উন্নত সড়ক।
সুতরাং,এ অঞ্চলের কৃষক,শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষের প্রানের দাবি অতিশীঘ্র যেত এ রাস্তাটি পাকা হয়।এ জন্য তারা প্রশাসন,রাজনৈতিক ব্যক্তিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন।

আরও পড়ুন...

গাইবান্ধায় পুনাকের মাসব্যাপী শীতবস্ত্র মেলার উদ্বোধন

Staff correspondent

কালিগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা

Staff correspondent

রাজাপুরে নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নের নামে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ

Staff correspondent
bn Bengali
X