25 C
Dhaka
শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, | সময় ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ

সন্দ্বীপের রহমতপুরে আবারো গভীর রাতে সন্ত্রাসী হামলা

বাদল রায় স্বাধীন

চট্টগ্রামের দ্বীপ উপজেলা সন্দ্বীপের রহমতপুর ইউনিয়নে আবারো গভীর রাতে একটি বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে দাবী করেছেন শিল্পী বেগম ও রাহেনা বেগম নামে দুই গৃহিনী। এ সময় তাদের ঘরে গৃহকর্তা ছিলেন না। ঘটনাটি ১৪ অক্টোবর মঙ্গলবার মধ্য রাতে রহমতপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডস্থ খুরশীদ সুকানীর বাড়ীর জামাল ও কামরুলের ঘরে ঘটেছে। দুই মহিলা এসএনটিভর প্রতিবেদকের কাছে দাবী করে বলেন-রাত আড়াইটার দিকে স্থানীয় আকবর, খোকন, রিয়াদ ও রোবেল এই ৪জন প্রথমে জামালের ঘরের টিনের বেড়ায় ও চালায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারি কোপায় এবং দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে জামালকে খুঁজাখুঁজি করে না পেয়ে জামালের ছোট ছেলে ২য় শ্রেণির ছাত্র আল ইসলাম (০৯) কে গলা টিপে ধরে এবং চর-থাপ্পাড় মারে। তিনি আরো বলেন-এ ছাড়া ঘরের টেবিলের ভেতর একটি ব্যাগে রক্ষিত নগদ ৩০ হাজার টাকা ও জামালের স্ত্রী শিল্পী বেগম (৩৫) এর গলা থেকে ১২ আনা ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। ঘটনার শুরুতে তারা বিকট শব্দের আওয়াজ পান এগুলো গুলি কিংবা বোমার আওয়াজ হতে পারে বলে তিনি ধারণা করে বলেন সন্ত্রাসীরা যাওয়ার সময় ঘরের খোলা বারান্দায় স্তুপকৃত শুকনো পাতায় কেরোসিন দিয়ে আগুন ধরানোর চেষ্টা করে। কিন্তু তিনি ৪ জনের মধ্যে তিনজনকে চিনেছেন দাবী করলেও কাকে চিনতে পারেননি বা বাকিদের কিভাবে চিনলেন সে ব্যাপারে কিছুটা অস্পষ্ট বক্তব্য দিয়েছেন। একই ভাবে পাশের ঘরের কামরুলের স্ত্রী রাহেনা বেগম বলেন-তার ঘরের দরজায়ও ঐ সন্ত্রাসীরা এলোপাথারী কোপায় এবং ঘরে ঢুকে ৬ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নেয়। কামরুলের বাবা আবুল কাশেম পাশের ঘর থেকে এ সময় ঘটনাস্থলে আসতে চাইলে সন্ত্রাসীরা তাকে বাঁধা দেয় বলে জানায়। এ ঘটনার সংবাদ পেয়ে সকাল ৯ টার দিকে সন্দ্বীপ থানার এসআই মনোয়ার সহ সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে আসেন এবং ক্ষতিগ্রস্থদের বয়ান নেন। তিনি ক্ষতিগ্রস্থদের মামলার প্রয়োজনে সন্দ্বীপ থানায় যোগাযোগ করার পরামর্শ দিয়ে যান। সকালে পুলিশের উপস্থিতিতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা রহমতপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার ইলিয়াছ খান বলেন আমি ঘটনার খবর শুনে দেখতে এসেছি এবং ঘরের বিভিন্ন জায়গায় কোপানোর কয়েকটি চিহৃ দেখেছি।এখন যেহেতু পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ওনারা এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। এ দিকে এ ঘটনার সাথে উপজেলা যুবলীগের সদস্য ও রহমতপুর ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক আকবর মাহমুদের নাম আসায় তিনি এঘটনার সাথে তার কিংবা তার অনুসারীদের কোন সম্পর্ক কিংবা সম্পৃক্ততার কথা জোর দিয়ে অস্বীকার করে বলেন-আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একটি সুবিধাবাদী মহল ঘোলাপানিতে মাছ শিকারে নেমে পড়েছে। এ মহলটি ইতিপূর্বেও আমাকে নানাভাবে হয়রানি ও ইমেজ ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করেছে এবং আমাকে সহ যুবলীগ কর্মীদের এখনও ফাঁসানোর পায়তারা করছে। যুবলীগ নেতা আকবর, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগটি যে মিথ্যা, বানোয়াট ও ষড়যন্ত্রমূলক সে বিষয়ে উপজেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দ ও আওয়ামীলীগের উর্দ্বতন নেতৃবৃন্দকেও অবহিত করেছেন বলে জানান।

আরও পড়ুন...

ঝিনাইদহের হাটবাজারের বেহাল দশা সামাজিক নিরাপত্তায় খেলার মাঠে হাট স্থানান্তর করার দাবী

Staff correspondent

ইসলামপুরে বন্যা কবলিতদের মাঝে ভিজিএফ এর চাল বিতরণের উদ্বোধন

Staff correspondent

নাগেশ্বরীতে মাদক বিরোধী অভিযান; ১০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার

Staff correspondent
bn Bengali
X