27 C
Dhaka
সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, | সময় ৭:৪৫ পূর্বাহ্ণ

শতবর্ষ পেরিয়ে ১০১তম জন্মদিনে সুবর্ণ জয়ন্তীর মাহেন্দ্রক্ষণ!!

লেখকঃ মাহির আমির মিলন শিক্ষার্থী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।

 “যতকাল রবে পদ্মা মেঘনা যমুনা বহমান, ততকাল রবে কীর্তি তোমার শেখ মুজিবুর রহমান “। চরণটির সাথে মুজিব শতবর্ষের দিকে তাকালে মনে হবে সবকিছু যেন গুলিয়ে দিয়েছে মহামারি করোনা। মুজিব শতবর্ষ ঘিরে সরকারের যত পরিকল্পনা ছিলো তা এখন সাদামাটা বলা চলে।

তবে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে কিছুটা হলে আমেজের চাপ পড়ছে গোটা দেশে। সে সাথে রয়েছে বঙ্গবন্ধুর একশ ১ তম জন্মশতবার্ষিকী।স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরে আজ আমরা মুখোমুখি তবে এখনো দেশের অনেক বিরাজমান সমস্যা রয়ে গেছে জনসম্মুখে। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে এদেশের মহান স্বাধীনতা।অথচ এখনো স্বাধীনতার লাল রক্তিম সূর্য মনে হয় শত ভাগে খণ্ডিত।

মুজিব শতবর্ষের অঙ্গিকারকে আমাদের চেতনার সাথে মিলিয়ে আমাদের উচিত গোটা জাতি স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন করা। এদেশ কারো একার নয় যেমনি সত্য ঠিক তেমনি স্বাধীনতা বিজয়ের লাল – সবুজ পতাকা কোনো ব্যক্তির নয়। মুজিব শতবর্ষ এবং স্বাধীনতার সুবর্ন জয়ন্তীর মাহেন্দ্রক্ষণে আমাদের দৃঢ় প্রত্যয়ভাবে শপথ গ্রহণ  উচিত, যেন আমরা সকল প্রকার দলাদলি, হানাহানি, মারামারি, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ভুলে ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করা।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে এদেশের কুলি – মজুর থেকে শুরু করে সরকারি আমলারাও নিরেট ভূমিকা রেখেছে তা অকপটে সবার স্বীকার করা হচ্ছে প্রকৃত দেশপ্রেম। স্বাধীনতা সংগ্রামে আমাদের মনে রাখা উচিত সকালের সম্মিলিত প্রয়াসে  আমরা আজকের লাল রক্তিম সূর্য এবং বাংলাদেশ নামক একখানা স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি পেয়েছি।

মুজিব শতবর্ষ আমাদের উচিত এদেশের আমজনতাকে আবারো একত্রিত করে দেশগঠনে জাপিয়ে পড়া। তখন হয়তো স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরের সাথে বঙ্গবন্ধুর একশ ১ তম জন্মশতবার্ষিকী আমাদের জন্য শিক্ষনীয় হয়ে থাকবে ইতিহাসের পাতায়।

আরও পড়ুন...

পশ্চিম গগনে বাঁকা চাঁদ দেখলেই পবিত্র ঈদুল ফিতরের ঈদ

Staff correspondent

মানবতার কল্যাণে বিজয়ের ইতিহাস স্মরণীয় হোক

Al Mamun Sun

হারিয়ে যাচ্ছে শিল্পী বাবুই পাখি ও তার দৃষ্টিনন্দন বাসা

Staff correspondent
bn Bengali
X